ADS
ব্রেকিং নিউজঃ
হোম / আন্তর্জাতিক / বিস্তারিত
ADS

ধাক্কায় আহত মমতাকে হাসপাতালে ভর্তি

১১ মার্চ ২০২১, ১০:৩৫:৩০

নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে ধাক্কায় আহত ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কলকাতার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় রাজ্যের নন্দীগ্রামের রেয়াপাড়ায় নির্বাচনী প্রচারণার সময় কয়েকজন এসে তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় বলে অভিযোগ করেন মমতা।

আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, আহত হওয়ার পর বুধবার রাতে পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম থেকে তাকে সড়কপথে গাড়ির পেছনে শুইয়ে গ্রিন করিডোর করে কলকাতায় নিয়ে আসা হয়। মুখ্যমন্ত্রীকে এসএসকেএম-এর উডবার্ন ওয়ার্ডের সাড়ে ১২ নম্বর কেবিনে ভর্তি করা হয়। প্রাথমিকভাবে পাঁচ সদস্যের একটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য সচিব নারায়ণস্বরপ নিগম-সহ স্বাস্থ্য দপ্তরের পদস্থ কর্তারা হাজির হয়েছেন হাসপাতালে। প্রাথমিকভাবে তার শারীরিক পরীক্ষা করা হবে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে। তারপর এক্স-রে করানো হবে। চোট গুরুতর হলে রাতেই পায়ে প্লাস্টার করা হতে পারে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর চিকিৎসায় ওই মেডিকেল টিমে মেডিসিন, সার্জারি, কার্ডিয়োলজি, শল্য, হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা রয়েছেন। চিকিৎসকেরা তাকে পরীক্ষা করে দেখবেন- উডবার্ন ওয়ার্ডে তাকে কত দিন রাখার প্রয়োজন রয়েছে। চোট গুরুতর হলে, বেশ কয়েক দিন তাকে সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে থাকতে হবে বলে জানা গিয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যায় নন্দীগ্রামের রানিচক এলাকায় একটি হরিনাম সংকীর্তনের অনুষ্ঠান থেকে বেরনোর মুখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা পড়ে যান। তিনি অভিযোগ করেন, তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়া হয়। মমতা উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, যখন তিনি গাড়িতে উঠার চেষ্টা করছিলেন তখন চার-পাঁচজন লোক তাকে ধাক্কা দেয়। নিজের পা দেখিয়ে তিনি বলেন, ‘দেখেছেন কতটা ফুলে গেছে।’ এটি পরিকল্পিত ঘটনা বলেও দাবি করেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী।

এ মাসের শেষ দিকে পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন শুরু হবে। নির্বাচনে বড় যুদ্ধক্ষেত্রগুলোর একটি নন্দীগ্রাম। এবারের নির্বাচনে কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকা বিজেপির সঙ্গে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসের মূল লড়াই হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ADS ADS

প্রতিছবি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Comments: