ADS
হেডলাইন
◈ ঢালাওভাবে বিদেশি পরামর্শক নিয়োগ নয়: প্রধানমন্ত্রী ◈ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জাতীয় পার্টির ◈ ভুল স্বীকার করলেন নোবেল ◈ লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবি, ৩৩ বাংলাদেশি উদ্ধার ◈ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ ব্রিফিং বর্জনের ঘোষণা ◈ নথিগুলো প্রকাশ পেলে দেশের ক্ষতি হয়ে যেত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ জুনে স্কুল-কলেজ খুলতে চায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় ◈ রোজিনা বৃহস্পতিবার জামিন পাবেন, আশা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ◈ বাংলা একাডেমির সভাপতি হলেন অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম ◈ মুক্তির দিনেই ইতিহাস গড়েছে সালমানের ‘রাধে’ ◈ বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা চূড়ান্ত সময়সূচি ◈ নেত্রকোনায় বজ্রপাতে সাতজনের মৃত্যু ◈ এবার রেড ক্রিসেন্ট ভবনে ইসরাইলি বিমান হামলা ◈ কাশিমপুর কারাগারে সাংবাদিক রোজিনা ◈ বিসিবির সম্প্রচার স্বত্ব কিনল বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান ◈ সিলেটে ছুরিকাঘাতে চীনা নাগরিক নিহত ◈ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত ◈ রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি ◈ করোনায় আরও ৩০ মৃত্যু, শনাক্ত ১২৭২ ◈ করোনার বছরেও শীর্ষ রেমিট্যান্স আহরণকারী দেশের তালিকায় বাংলাদেশ
হোম / সারা বাংলা / বিস্তারিত
ADS

কাপ্তাইয়ে ফুল ভাসিয়ে পালিত হচ্ছে বৈসাবী উৎসব

১২ এপ্রিল ২০২১, ৫:২৯:১০

করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাপ্তাই হ্রদে ফুল ভাসানোর মধ্য দিয়ে ঘরোয়াভাবে পালিত হচ্ছে পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব বৈসাবী। বৈসাবী উপলক্ষে আজ সোমবার সকাল ১০টায় শহরের ত্রিপুরা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গর্জনতলী এলাকা, অন্যান্য পাহাড়ি সম্প্রদায় ও সংগঠনের উদ্যোগে শহরের রাজবাড়ী ঘাট, বনরুপা দেবাশীষ নগরসহ কাপ্তাই হ্রদবেষ্টিত বিভিন্ন এলাকায় তাদের ধর্মীয় নিয়ম অনুযায়ী দেশ ও সমাজের কল্যাণের জন্য কাপ্তাই হ্রদে গঙ্গাদেবীর উদ্দেশ্যে ফুল ভাসিয়ে বৈসাবীর আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেন।

বৈসাবীতে সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন উৎসবের আয়োজন থাকলে ও করোনার কারণে ঘরোয়াভাবে পার্বত্য চট্টগ্রামে বৈসাবী উৎসব পালিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ত্রিপুরা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ঝিনুক ত্রিপুরা। তিনি জানান, করোনার কারণে বৈসাবী উৎসব পালন কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকারি নির্দেশনা মেনে ঘরোয়াভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বৈসাবী উৎসব পালন করা হচ্ছে।

তিনি জানান, পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী বৈসাবীতে সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন খেলাধুলাসহ উৎসবের আয়োজন করা হলে ও তাদের ৩দিনই থাকে বৈসাবীর মূল আয়োজন। তার মধ্যে ১২ এপ্রিল কাপ্তাই হ্রদে ফুল বাসানোর মধ্য দিয়ে শুরু হয় ফুল বিজু, ১৩ এপ্রিল পাহাড়ি ঐতিহ্যবাহী পাজন, পিঠাসহ বিভিন্ন ধরনের রান্না করে অতিথিদের আপ্যায়নের মাধ্যমে শুরু হয় মূল বিজু, এবং ১৪ এপ্রিল বৈসাবীর শেষ দিন শুরু হয় গইজ্জ্যা-পইজ্জ্যা উৎসব। বৈসাবীর শেষ দিনে পাহাড়িদের বাসায় তাদের ঐতিহ্যবাহী পানীয় দো-চোয়ানির মাধ্যমে অতিথিদের আপ্যায়নের ব্যবস্থা করা হয়।

১৫ এপ্রিল মারমা জনগোষ্ঠীর উদ্যোগে শুরু হয় সাংগ্রাঁই জল উৎসব। এ উৎসবের মাধ্যমেই শেষ হয় পাহাড়ের বৈসাবী উৎসব। বৈসাবী উৎসব পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ইন্টু মনি তালুকদার বলেন, মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে গতবছরের মতো এবারও সরকারী নির্দেশনা মেনে ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলা, র‌্যালি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মতো বড় উৎসব বাদ দিয়ে একান্ত ঘরোয়াভাবে পরিবার পরিজন নিয়ে এ উৎসব পালন করবেন এখানকার বসবাসরত পাহাড়ি জনগণ।

বৈসাবীকে চাকমা সম্প্রদায়ের বিজু, মারমা সম্প্রদায়ের সাংগ্রাঁই, তঞ্চগ্যা সম্প্রদায়ের বিষু, ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের বৈসু নামে পরিচিত হলে ও সকলে বর্ষ বিদায় এবং নববর্ষকে বরণ উপলক্ষে এ উৎসব গুলো পালন করে থাকেন।

ADS ADS

প্রতিছবি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Comments: