ADS
ব্রেকিং নিউজঃ
ADS

মওদুদ কখনও ছাত্রলীগ করেননি

১ এপ্রিল ২০২১, ৯:০২:০৫

‘মওদুদ মেধাবী ছিলেন তবে তা দেশের জন্য কাজে লাগাননি’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তিনি মেধাবী ছিলেন তবে তা দেশের জন্য কাজে লাগাননি। আজ বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের প্রথম দিন সংসদে শোক প্রস্তাবের আলোচনায় বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি সব সময়ই সরকারঘেঁষা ছিলেন। যারা ক্ষমতায় থাকত তিনি সব সময় সেই দিকে থাকতেন। তিনি ট্যালেন্টেড ছিলেন।

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামালায় মওদুদের আইনজীবী হওয়া প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি কখনও আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না, আর আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় তিনি বঙ্গবন্ধুর আইনজীবী ছিলেন না। এছাড়া মওদুদ কখনও ছাত্রলীগ করেননি। পল্লিকবি জসীমউদ্‌দীনের মেয়ের জামাই হিসেবে তিনি সব সময় সহানুভূতি পেতেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মওদুদ তার জীবনীতে লিখেছেন, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার আইনজীবী ছিলেন। এ তথ্য সঠিক নয়। তবে যারা এই মামলার আইনজীবী ছিলেন ড. কামাল হোসেন, ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম; তিনি তাদের সঙ্গে ঘুরতেন, সারাক্ষণই থাকতেন। তিনি নিয়োগপ্রাপ্ত কেউ ছিলেন না। শেখ হাসিনা বলেন, বাবা যখন সেনানিবাসে আটক ছিলেন। তখন ড. কামাল, ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম, মওদুদরা বাবাকে প্যারোলে মুক্তির চেষ্টা করছিলেন।

‘তখন আমার মা দৃঢ়চিত্তে এর বিরোধিতা করে আমার মাধ্যমে মেসেজ পাঠায়। আমি সেই মেসেজ নিয়ে সেনানিবাসে যাই। সেখানে তাজউদ্দীন আহমদসহ আমাদের আরও অনেক নেতা ছিলেন। আমি মায়ের মেসেজ পৌঁছে দিই। এরপর আমি বাড়ি চলে এসে দোতলার বারান্দায় দাঁড়িয়ে ছিলাম। তখন ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম ও ব্যারিস্টার মওদুদ আমার কাছে আসেন। আমীর-উল ইসলাম আমাকে বলেন, তুমি কেমন মেয়ে যে বাবার মুক্তি চাও না। মওদুদ তখন সায় দিয়েছিলেন।ৎ

তখন আমি তাদের বলেছিলাম, বাবা নির্দোষ প্রমাণিত হয়ে বের হয়ে আসবেন। আপনারা বিভ্রান্তি ছড়াবেন না। মওদুদ সব সময় এমনই ছিলেন, বলেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর আওয়ামী লীগের আমলে পোস্ট মাস্টার জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পান মওদুদ। ১৯৭৫ সালের পর জিয়াউর রহমান সেনাপ্রধান থাকা অবস্থায় রাষ্ট্রপ্রধান হয়ে বিএনপি গঠন করলে মওদুদ যোগ দেন সেই দলে। পরে এরশাদ সরকারেও যোগ দেন তিনি। ১৯৯৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর তিনি আবার চলে আসেন বিএনপিতে। গত ১৬ মার্চ মারা যান এই রাজনীতিক।

ADS ADS

প্রতিছবি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Comments: