ADS
হেডলাইন
◈ মুজিব আদর্শে বিশ্বাসীরা কমপক্ষে ৩টি করে গাছ লাগান : প্রধানমন্ত্রী ◈ শর্তসাপেক্ষে অটোপাস দিচ্ছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ◈ বিসিবির নতুন চুক্তিতে থাকছেন সাকিব ◈ তিন মাসে খেলাপি ঋণ বাড়ল ৬৮০২ কোটি ◈ লিচুর পুষ্টিগুণ ◈ ওরাল কেয়ার। যে ৫টি অভ্যাস আপনার দাঁতকে রাখবে সুস্থ ও সুন্দর সবসময় ◈ গুঁড়া চিংড়ি ভর্তা ◈ নিখুঁত মেকআপ পেতে সহজ ৫টি মেকআপ হ্যাকস ◈ আন্তর্জাতিক রিসার্চ গ্রান্ড পেলেন ববির ৫ শিক্ষার্থী ◈ শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি গণমাধ্যমবান্ধব সরকার প্রধান: শ ম রেজাউল ◈ ডিবি কার্যালয় থেকে বেরিয়ে যা বললেন পরীমনি ◈ মাদক মামলায় ৭ দিনের রিমান্ডে নাসির-অমি ◈ বিএনপিকে প্রমাণ করতে হবে ১৫ আগস্টই খালেদা জিয়ার প্রকৃত জন্মদিন: কাদের ◈ দেশে করোনায় আরও অর্ধশত প্রাণহানি, নতুন শনাক্ত ৩৩১৯ ◈ টানা ৭ দিন ধরে নিম্নমুখী ভারতের করোনা পরিস্থিতি ◈ রামেকের করোনা ইউনিটে আরও ১২ জনের মৃত্যু ◈ নাসির-অমিসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে এবার মাদক মামলা ◈ মেসির অসাধারণ গোলেও জয় পেল না আর্জেন্টিনা ◈ অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত ◈ করোনা ইস্যুতে কোনো ঝুঁকি নেয়া যাবে না: প্রধানমন্ত্রী
হোম / অর্থনীতি / বিস্তারিত
ADS

পোশাক শ্রমিকদের মূল বেতন বাড়লেও আয় কমেছে

১৪ মে ২০২১, ৯:২২:১৭

সম্প্রতি ‘দি উইকেস্ট লিঙ্ক ইন গ্লোবাল সাপ্লাই চেইন : হাউ দ্য প্যানডেমিক ইজ অ্যাফেক্টিং বাংলাদেশ গামেন্টস ওয়ার্কার্স’ শীর্ষক এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে গত এক বছরে দেশের ৩৫ শতাংশ পোশাক শ্রমিকের বেতন কমেছে। ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মধ্যে স্বাস্থ্যঝুঁকি উপেক্ষা করে কাজ করলেও যথাযথ পারিশ্রমিক পাচ্ছেন না তারা। ফলে তাদের অর্থনৈতিক ও স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছেই।’

এ প্রতিবেদনকে ‘উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন এ খাতের দেশীয় উদ্যোক্তারা। তারা বলছেন, এখন তৈরি পোশাক কারখানায় শ্রমিক সঙ্কট রয়েছে। কারখানা মালিকরাই প্রতিযোগিতা করে শ্রমিক নিচ্ছেন। বৈশ্বিক মহামারি শুরুর আগে কারখানায় যে বেতন ছিল, এখন তা থেকে প্রায় ১০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে।

অন্যদিকে শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তাদের বেতন বেড়েছে। তবে অনেক কারখানায় কাজের অর্ডার কমে যাওয়ায় বাড়তি আয় (ওভার টাইম) কমে গেছে। মূল বেতন বাড়লেও আয় কমেছে।

শ্রমিক নেতারা বলছেন, মালিকপক্ষ অনেক কিছুই গোপন করেন। অনেক শ্রমিক চাকরি হারানোর ভয়ে কথা বলতে পারে না। এখনও অনেক কারখানায় বকেয়া রয়েছে। ওভার টাইম না থাকলে কীভাবে চলবে, সেগুলোও উঠে আসা উচিত।

গত বছর বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের শুরুর পর সব কিছু স্থবির হয়ে পড়ে। এর প্রভাবে বৈশ্বিক অর্থনীতিও কোণঠাসা হয়ে যায়। এর প্রভাব পড়ে দেশের রফতানি আয়ের সবচেয়ে বড় খাত পোশাক শিল্পে। একের পর এক অর্ডার বাতিল হতে থাকে। ক্রেতাদের কাছে বকেয়াও পড়ে বেশিরভাগ কারখানার।

এরই মধ্যে সবকিছু লকডাউনের আওতায় আনে সরকার। লকডাউনের সময় ২০২০ সালের ৪ থেকে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকে সব কারখানা। অনেক কারখানায় শ্রমিকদের ৬৫ শতাংশ বেতন দেয়া হয়। অনেক কারখানায় আবার পুরো টাকাই দেয়া হয়, যদিও এ সময়ের মধ্যে তারা কারখানায় কোনো কাজ করেননি।

মালিকপক্ষ সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বন্ধের সময় শ্রমিকদের ৬৫ শতাংশ হারে বেতন হওয়া মানে বেতন তার কমেনি। কারখানা লে-অফ ঘোষণা করা হলে ৫০ শতাংশ বেতন হওয়ার কথা। তবে শ্রমিকরা ৬৫ শতাংশ পেয়েছেন। যোগদান এক বছরের কম হলে টাকা পাবেন না, আইনে এ বিধান থাকলেও সবাই সে সময় অর্থ পেয়েছেন। ২২ দিনে ৬৫ শতাংশ বেতন তারা পেয়েছেন, কেউ কেউ পুরো বেতন পেয়েছেন। এটাকে বেতন কমা বলা যাবে না, বেতন বেড়েছে।

তাদের দাবি, কোভিড-১৯ সময়ে অনেক কারখানায় কাজের অর্ডার কম থাকায় সেখানে ওভার টাইম দেয়া হয়নি। কিন্তু তাদের মূল বেতন কমেনি, অধিকাংশ কারখানায় ইনক্রিমেন্ট হয়েছে। এ সময় ১০ শতাংশ পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পেয়েছে।

‘দি উইকেস্ট লিঙ্ক ইন গ্লোবাল সাপ্লাই চেইন : হাউ দ্য প্যানডেমিক ইজ অ্যাফেক্টিং বাংলাদেশ গামেন্টস ওয়ার্কার্স’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনে করোনাকালে গার্মেন্টসের, বিশেষ করে নারীকর্মীদের বিভিন্ন ঝুঁকির চিত্র উঠে এসেছে। গত ২৭ এপ্রিল প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছর করোনা শুরুর পর দেশের ৩৫ শতাংশ পোশাক শ্রমিকের বেতন কমানো হয়। এছাড়া বাজারে চাহিদা কমা, করোনার কারণে বাজার বন্ধ, শিপমেন্টে দেরি হওয়া, সময়মতো পণ্যের মূল্য না পাওয়াসহ বিভিন্ন কারণে পোশাকখাত ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং শ্রমিকদের ঝুঁকি বেড়ে যায়। করোনার অজুহাতে নারী শ্রমিকদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। অনেকের বেতন হ্রাস করা হয়েছে। বাধ্য হয়ে কর্মীরা ধার-দেনায় জড়িয়ে পড়েছেন।’

ADS ADS

প্রতিছবি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Comments: